ফরিদপুর টু ঢাকা বাসের সময়সূচী, ভাড়া, অনলাইন টিকিট 2022

আপনাদের সকলকে স্বাগতম জানাচ্ছি ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে চলাচলকারী বাস এর সকল তথ্য সম্বলিত আজকের এই অনুচ্ছেদে। আপনারা এই অনুচ্ছেদ থেকে ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে চলাচলকারী সকল বাস এর সকল তথ্য গুলো পেয়ে যাবেন। ফরিদপুর টু ঢাকা এ  রুটে চলাচলকারি প্রত্যেকটি বাসের সময়সূচী সম্পর্কে আপনারা খুব ভালোভাবে ধারণা পেয়ে যাবেন বাসগুলো কখন ঢাকার উদ্দেশ্যে ফরিদপুর থেকে ছেড়ে যাচ্ছে এবং কখন ঢাকাতে এসে পৌঁছাচ্ছে সেই তথ্যগুলো আপনারা পাবেন।

এছাড়া বাসগুলোর ভাড়া কত নির্ধারণ করা হয়েছে সেই সম্পর্কে আপনারা একটি মোটামুটি ধারনা পাবেন এবং সর্বশেষে জানতে পারবেন আপনারা কিভাবে বাসের টিকিট অনলাইনে সংগ্রহ করতে পারেন। যেসকল পাঠকগনের এই বিষয়ে আগ্রহ রয়েছে তারা অবশ্যই আমাদের এই পোস্ট এর নিচের অংশটুকু লক্ষ্য করুন

ফরিদপুর টু ঢাকা বাসের সময়সূচী

এখন আমরা পোস্টের এই অংশে ফরিদপুর থেকে চলাচলকারি ঢাকার উদ্দেশ্যে সকল বাসগুলো সময়সূচী সম্পর্কে আপনাদের জানাবো। বাসগুলো কখন ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাচ্ছে এবং কখন ঢাকাতে এসে পৌঁছাতে সেই বিষয়গুলো বিস্তারিত আলোচনা করুন।

  • কমফোর্ট লাইন পরিবহন বাস কোম্পানি ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে তাদের বেশ কয়েকটি নন এসি বাস চালু রেখেছে। বাস গুলোর মধ্যে একটি বাস খুব সকালে 5:15 মিনিটে ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে। ফরিদপুর থেকে ছেড়ে আসা এই বাসটি ঢাকাতে এসে পৌঁছায় সকাল 10:30 মিনিটে।
  • সেবা গ্রীন লাইন বাস কম্পানি বেশ কয়েকটি বাস ফরিদপুর টু ঢাকা এই লাইনে চলাচল করে। এই লাইনে চলাচলকারি সেবা গ্রীন লাইন বাস কোম্পানির একটি বাস খুব সকালে 5:30 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ফরিদপুর থেকে যাত্রা শুরু করে। ফরিদপুর থেকে যাত্রা শুরু করে এসে এই বাসটি ঢাকা তে পৌঁছায় সকাল 10:30 মিনিটে।
  • গোল্ডেন লাইন বাস সার্ভিস চালু রেখেছে ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে তাদের বেশ কয়েকটি এসি বাস সার্ভিস। এই বাসগুলো হতে একটি বাস সকাল 10 টা 15 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ফরিদপুর থেকে ছেড়ে আসে এবং দুপুর 2:30 মিনিটে ঢাকাতে এসে তার যাত্রা শেষ করে।
  • শ্যামলী এন আর ট্রাভেলস এস কোম্পানি ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে তাদেরও বেশ কয়েকটি বাস চালু রেখেছে। তাদের বাসগুলোর সেবা বেশ ভালো এবং একটি বাস সকাল 7:30 মিনিটে ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা এই বাসগুলো সকাল 12 টা 30 মিনিটে ঢাকাতে এসে তার যাত্রা শেষ করে।
  • সাকুরা পরিবহন মোটামুটি ভালো সার্ভিসের মাধ্যমে ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। সাকুরা পরিবহনের একটি বাস সকাল 8:15 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে এবং দুপুর 1:30 মিনিটে ঢাকাতে এসে পৌঁছায়।
  • কম্ফর্টলাইন পরিবহনের একটি বাস দুপুর বেলাতে ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। এই বাসটি দুপুর 2:30 মিনিটে ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে এবং সন্ধ্যা 7 টা 30 মিনিটে ঢাকাতে এসে তার যাত্রা শেষ করে।
  • সেবা গ্রীন লাইন বাস সার্ভিস বেশ আরামদায়ক যাত্রার জন্য পরিচিত। যারা যাত্রা করেন তারা অনেকেই নিয়মিত এই বাসে যাতায়াত করতে পছন্দ করেন। সেবা গ্রীন লাইন বাস কম্পানি একটি বাস দুপুর 2:30 মিনিটে ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা এই বাসে ঢাকাতে এসে পৌঁছায় সন্ধ্যা 7 টা 15 মিনিটে।
  • শ্যামলী এন আর ট্রাভেলস লিমিটেডের বেশ কয়েকটি বাসের মধ্যে একটি বাস বিকেল বেলায় ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করা এই বাসটি বিকেল 3:15 মিনিটে ফরিদপুর থেকে ছেড়ে আসা এবং রাত 8 টা 15 মিনিটে ঢাকাতে এসে পৌঁছায়।
  • সাকুরা পরিবহন তাদের বেশ কয়েকটি বাস এ রুটে চলাচলের জন্য রেখেছে। চলাচলকারি এই বাস গুলোর মধ্যে একটি বাস সন্ধ্যা 6 টা 30 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে এবং রাত 11 টা 30 মিনিটে ঢাকাতে এসে তার যাত্রা শেষ করে।
  • গোল্ডেন লাইন চালু রেখেছে ফরিদপুর টু ঢাকা এ রুটে তাদের এসি বাস। যারা এসি বাসে চলাচল করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য গোল্ডেন লাইন রেখেছে এই বাস সার্ভিস। এই বাস গুলোর মধ্যে একটি বাস সন্ধ্যা 7 টা 30 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে ফরিদপুর থেকে। ফরিদপুর থেকে আরামদায়ক এসি বাসটি ঢাকাতে এসে পৌঁছায় রাত 11:30 মিনিটে।

ফরিদপুর টু ঢাকা বাসের ভাড়া

যারা পর্যন্ত ঢাকায় এই রুটে চলাচল করতে ইচ্ছুক রয়েছেন তাদের জন্য এখন আমরা উপস্থাপন করতে যাচ্ছি ফরিদপুর টু ঢাকা এই রূটে সকল বাসের ভাড়া।

  • কমফোর্ট লাইন পরিবহন বাস সার্ভিস খুব ভালোভাবে ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে তাদের বাসগুলো চালু রেখেছে। তারা এই বাসগুলোর ভাড়া নির্ধারণ করেছে 300 টাকা।
  • সেবা গ্রীন লাইন বাস কম্পানি বেশ আরামদায়ক যাত্রার জন্য ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে পরিচিত। তারা তাদের বাসের মাধ্যমে খুব ভালো সেবা প্রদান করে। সেবা গ্রীন লাইন কোম্পানি তাদের টিকিট মূল্য নির্ধারণ করেছে 450 টাকা।
  • শ্যামলী এন আর ট্রাভেলস লিমিটেড কোম্পানি তাদের ফরিদপুর টু ঢাকা এসি বাস রেখেছে। এই বাস গুলোর ভাড়া তারা নির্ধারণ করেছে 350 টাকা।
  • সাকুরা পরিবহন তাদের বাসগুলোতে খুব ভালো সার্ভিস প্রদান করে দেশের সব জায়গাতেই। ফরিদপুর টু ঢাকা এই রুটে সাকুরা পরিবহন তাদের বেশ কয়েকটি নন এসি বাস চালু রেখেছে এবং তারা তাদের বাসের ভাড়া নির্ধারণ করেছে 350 টাকা।
  • গোল্ডেন লাইন বাস কম্পানি ফরিদপুর টু ঢাকা এইরূটে তাদের এসি বাস গুলো চালু রাখে। তারা তাদের এসি বাসের ভাড়া নির্ধারণ করেছে 600 টাকা।

অনলাইনে বাসের টিকিট 2022

আমরা আমাদের প্রত্যেকটি প্রশ্নের মাধ্যমে আপনাদের জানাতে চেয়েছি যে কিভাবে অনলাইনে বাসের টিকিট কাটা যায়। আপনারা অবশ্যই এ সম্পর্কিত তথ্য বিস্তারিত জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে মোবাইলের মাধ্যমে বাসের টিকিট কাটা এই পোস্টটি দেখে আপনার বাসের টিকিট কাটার তথ্য জানতে পারেন। এর পরে আপনি নিজে থেকেই আপনার বাসের টিকিট কাটতে পারবেন। শুধুমাত্র shohoz.com এর মাধ্যমে যে কেউ যেকোনো জায়গায় বাসের টিকিট কাটতে পারে।

এরপরও যদি আপনারা কোন সমস্যার সম্মুখীন হন তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আমরা চেষ্টা করব আপনাদের কমেন্টের যথাযথ উত্তর দেওয়ার অথবা আপনাদের সমস্যা সমাধান করার। আপনাদের সকলের যাত্রা শুভ হোক সেই আশা কামনা করে আমরা আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। পরবর্তীতে আরো ভালো কিছু নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হবো।

ফরিদপুর জেলা

বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চলে যে কয়টি জেলা অবস্থিত তার মধ্যে ফরিদপুর একটি। ফরিদপুর বাংলাদেশের ঢাকা বিভাগের একটি জেলা। দেশে যে কয়টি এ গ্রেড প্রাপ্ত জেলা রয়েছে তার মধ্যে ফরিদপুর একটি। ফরিদপুরের উত্তরে রয়েছে রাজবাড়ী জেলা ও মানিকগঞ্জ জেলা। দক্ষিণের রয়েছে গোপালগঞ্জ জেলা এবং পশ্চিমে মাগুরা জেলা ও নড়াইল জেলা। এছাড়াও ফরিদপুরের পূর্বে ঢাকা জেলা এবং মাদারি জেলা অবস্থিত এর সঙ্গে মুন্সিগঞ্জ জেলা অবস্থিত।

ফরিদপুরে সর্বমোট 6 টা পৌরসভা রয়েছে ফরিদপুরে আরও রয়েছে 92 টি মহল্লা এবং 81 টি ইউনিয়ন পরিষদ এবং 1887 টি গ্রাম। ফরিদপুরে মোট উপজেলার সংখ্যা 9 টি। এখানে বহু প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন এর সমাহার রয়েছে তার মধ্যে কয়েকটি উল্লেখযোগ্য প্রত্নতান্ত্রিক সম্পদ হলো, সেসা গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রোড, বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি জাদুঘর ও পাঠাগার পাতরাইল মসজিদ ও শ্রীঅঙ্গন ইত্যাদি।

ফরিদপুরে পাঠ দেশের সবথেকে বেশি জন্মে এবং এই এলাকাতে জন্মানো পাঠ গুলোর মান সবথেকে ভালো। এর পাশাপাশি ফরিদপুরে ধান, ইক্ষু, গম, পেঁয়াজ, সরিষা, মরিচসহ নানা ফসল উৎপাদন করা হয়। পদ্মার ইলিশের জন্য ফরিদপুর আজও বিখ্যাত হয়ে আছে। খেজুরের গুড় এই জেলার প্রচুর উৎপাদন হয় তাই এই জেলাতে খেজুরের গুড়ের স্বাদ ও খুব ভালো। ফরিদপুরে বেশ কয়েকটি নদী রয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য নদী হলো ভুবেনেশ্বর নদী, মধুমতি নদী, গড়াই নদী ইত্যাদির। ফরিদপুরের রয়েছে বহু চিত্তাকর্ষক স্থান। স্থানগুলোর মধ্যে নদী গবেষণা ইনস্টিটিউট, টেপাখোলা সুইজগেট, ধলার মোড়, পদ্মার ইত্যাদি।

Digonto Ahmed

I am Digonto Ahmed. I read in Nasirabad University College. I like to travel. So I am sharing various information about Transport system in Bangladesh

Leave a Reply

Your email address will not be published.