মুন্সিগঞ্জ টু ঢাকা বাসের সময়সূচী, ভাড়া, অনলাইন টিকিট 2022

আমরা আজকের এই পোস্টে আলোচনা করতে যাচ্ছি মুন্সিগঞ্জ টু ঢাকা বাসের সময়সূচী। যদিও মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকার দূরত্ব খুব একটা বেশি দূরে নয় তারপরেও এই রুটে বেশ কয়েকটি বাস চলাচল করে। আমরা অন্যান্য পোস্ট গুলোর মত আজকে মুন্সীগঞ্জঢাকা এ রুটে চলাচলকারী বাস এর সকল তথ্য আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করব।

আপনারা আমাদের এই পোষ্টের মাধ্যমে জানতে পারবেন মুন্সীগঞ্জঢাকা এই রুটে কোন কোন বাস চলাচল করছে এবং বাসগুলো কখন চলাচল করছে। বাসগুলো কখন মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাচ্ছে এবং কখন ঢাকাতে গিয়ে পৌঁছাচ্ছে। বাসগুলো ঢাকামুন্সীগঞ্জ এই রুটে কত টাকা ভাড়া নির্ধারণ করেছে সে সম্পর্কেও ধারণা আপনারা পেয়ে যাবেন।

মুন্সীগঞ্জঢাকা কিছু তথ্য

মুন্সিগঞ্জ জেলা বাংলাদেশের মধ্যে অঞ্চলে অবস্থিত একটি জেলা। ঢাকা বিভাগের অন্তর্গত এই জেলাটি একটি সুপরিচিত জেলা। এই জেলার পূর্বের নাম ছিল বিক্রমপুর। মুন্সিগঞ্জ জেলার উত্তরে রয়েছে ঢাকা জেলা। উত্তরপূর্বের নারায়ণগঞ্জ জেলা এবং দক্ষিণে ফরিদপুর জেলা। পূর্বে মেঘনা নদী ও কুমিল্লা জেলা এবং পশ্চিমে পদ্মা নদী ও ফরিদপুর জেলা।

মুন্সিগঞ্জ জেলায় 6 টি উপজেলা রয়েছে এবং 6 উপজেলার মধ্যে 67 টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে। মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার মোট ইউনিয়ন সংখ্যা 9 টা।এই জনগোষ্ঠীর প্রধান অর্থনৈতিক বা আই এর উৎস হচ্ছে কৃষি। এছাড়াও কৃষিশ্রমিক, শিল্প, ব্যবসা পরিবহন যোগাযোগ, নির্মাণ ইত্যাদির দ্বারা অনেক মানুষ তাদের জীবিকা নির্বাহ করে। এই এলাকায় কৃষিনির্ভর হয় বহু কৃষিজাত পণ্য এই এলাকায় উৎপাদন হয়। উৎপাদিত পণ্য গুলোর মধ্যে ধান অন্যতম।

 মুন্সীগঞ্জে বেশ কয়েকটি শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যেহেতু ঢাকা থেকে মুন্সিগঞ্জের দূরত্ব খুব বেশি নয় তাই বহু শিল্প প্রতিষ্ঠান এই এলাকাতে গড়ে উঠেছে। এখানে রয়েছে প্রায় 67 টি হিমাগার। এছাড়া আরও রয়েছে সিমেন্ট ফ্যাক্টরি প্রায় 11 টি। এই জেলায় আরও রয়েছেন লবণ ফ্যাক্টরি তিনটি এবং কাগজ ফ্যাক্টরি তিনটি। এর পাশাপাশি টিস্যু ফ্যাক্টরি রয়েছে একটি এবং জাহাজ নির্মাণ শিল্প রয়েছে 6 টা। আরো রয়েছে ম্যাচ ফ্যাক্টরি তিনটা এবং আটা ফ্যাক্টরি একটা। আপনারা এই অনুমান থেকে বুঝতে পারছেন যে মুন্সিগঞ্জ শিল্প কতটা প্রসার লাভ করেছে এবং দিন যত যাচ্ছে ততই এই এলাকাতে শিল্প বেড়ে চলেছে।

বহু দর্শনীয় স্থান রয়েছে এই মুন্সিগঞ্জ জেলা তে। তারমধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য হলঃ জগদীশচন্দ্র বসুর জন্মস্থান, অতীশ দীপঙ্করের জন্মস্থান, রাজা শ্রীনাথের বাড়ি, ভাগ্যকুল জমিদার বাড়ি ইত্যাদি। এ ছাড়াও বহু দর্শনীয় স্থান রয়েছে যেখানে মানুষ প্রতিনিয়ত বেড়াতে আসেন।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব বহু জন্মগ্রহণ করেছেন এই জেলাতে তার মধ্যে যাদের কথা উল্লেখ না করলেই নয় তারা হলেন চিত্তরঞ্জন দাস, ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ, ব্রজেন দাস, অতীশ দীপঙ্কর, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়, মামুনুর রশিদ, হুমায়ুন আজাদ, জগদীশচন্দ্র বসু, মোহাম্মদ আবদুল হাকিম বিক্রমপুরী।

মুন্সিগঞ্জ টু ঢাকা বাসের সময়সূচী

মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকার দূরত্ব খুব বেশি দূরে নয় তাই এই জেলাতে প্রায় লোকাল বাসগুলোর বেশি চলাচল করে। বহু লোকাল বাস রয়েছে যাদের চলাচল রয়েছে মুন্সীগঞ্জঢাকা এই রুটে। তারপরও আমরা কিছু বাসের কথা উল্লেখ করি যাতে আপনাদের কিছুটা সুবিধা হয়।

  • নয়ন পরিবহন এই লোকাল বাসটি মুন্সীগঞ্জঢাকা এই রুটে চলাচল করে। এই রুটে চলাচলকারী বাসটি দিনের অনেক সময় মুন্সিগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকার উদ্দেশ্যে। নয়ন পরিবহনের বেশ কয়েকটি বাস গুলোর মধ্যে একটি বাস সকাল 5:30 এ মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকা গুলিস্তান এর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। ঢাকা গুলিস্তান এর উদ্দেশে ছেড়ে আসা এই বাসটি সকাল 7:30 মিনিটে ঢাকা গুলিস্তানে এসে পৌঁছায়।
  • মুন্সিগঞ্জ থেকে আরো বেশ কয়েকটি বাস রয়েছে যা ছেড়ে আসে ঢাকা গুলিস্তান এর উদ্দেশ্য। এগুলোর মধ্যে একটি বাস হল ঢাকা ট্রান্সপোর্ট বাস কম্পানি। এই কোম্পানির একটি বাস সকাল 6:15 মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা এই বাসটি সকাল 8:15 মিনিটে ঢাকা গুলিস্তানে এসে তার যাত্রা শেষ করে।
  • আরো একটি লোকাল বাস কোম্পানি রয়েছে যার নাম হল দিঘির পাড় পরিবহন। দিঘীরপাড় পরিবহনের বেশ কয়েকটি বাস রাত দিন এই মুন্সিগঞ্জ টু ঢাকা রুটে চলাচল করে। মুন্সিগঞ্জ ঢাকা রুটে চলাচলকারী দিঘির পরিবহন এর বাসটি সকাল 8:30 মিনিটে মুন্সিগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকার উদ্দেশ্যে। মুন্সিগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা বাসটি ঢাকা গুলিস্তানে এসে পৌঁছায় সকাল 10:30 মিনিটে।
  • সকাল 9:30 মিনিটে ছেড়ে আসে নয়ন পরিবহনের একটি লোকাল বাস মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে। ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা বাসটি ঢাকা গুলিস্তানে এসে পৌঁছায় সকাল 11:30 মিনিটে। যেহেতু এটি একটি লোকাল বাস তাই খুব দেরিতে ঢাকাতে এসে পৌঁছায়।
  • মুন্সীগঞ্জঢাকা এই রুটে চলাচল করে দিঘীরপাড় পরিবহনের বেশ কয়েকটি বাস। দিঘীরপাড় পরিবহনের একটি বাসের মধ্যে সকাল 10:30 মিনিটে একটি বাস ঢাকা গুলিস্তান এর উদ্দেশ্যে মুন্সিগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসে এবং দুপুর 12:30 মিনিটে ঢাকা গুলিস্তানে এসে পৌঁছায়।
  • ঢাকা ট্রান্সপোর্ট তাদের মুন্সীগঞ্জঢাকা এই রুটে বাস চালু রেখেছে। বাস গুলোর মধ্যে একটি বাস সকাল 11:30 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে মুন্সিগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসে। মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকা তে আসতে বাসটিকে 2 ঘন্টা সময় লাগে। বাসটি দুপুর 1:30 মিনিটে ঢাকা গুলিস্তানে এসে তার যাত্রা শেষ করে।
  • আরো রয়েছে নয়ন পরিবহনের একটি বাস যা মুন্সিগঞ্জ থেকে বিকেল 4:30 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে এবং সন্ধ্যা 6:30 মিনিটে ঢাকাতে এসে পৌঁছায়।
  • মুন্সীগঞ্জঢাকা এ রুটে চলাচল করে ঢাকা ট্রান্সপোর্ট এর আরো একটি বাস। ঢাকা ট্রান্সপোর্টের এই বাস গুলির মধ্যে একটি বাস বিকেল 3:30 মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে এবং সন্ধ্যা 5 টা 30 মিনিটে ঢাকাতে এসে পৌঁছায়।

মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকার দূরত্ব খুব একটা বেশি নয় তাই এই রুটে ভালো কোন বাস কোম্পানি তাদের বাস রাখেনি। এসি বাসের কোন ব্যবস্থা নেই এবং যে বাস গুলো রয়েছে সবগুলোই লোকাল বাস। আপনি যেকোন সময় মুন্সিগঞ্জ থেকে বহু বাস পেয়ে যাবেন যা ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে। প্রতিনিয়ত যে কোন  কোন লোকাল বাস পেয়ে যাবেন। লোকাল বাস হওয়ার কারণে আপনি আরামদায়ক যাত্রা আশা করতে না পারেন এবং অনেক সময় অনেক বেশি লেট হয় ট্রাফিক জ্যামের কারণে। আমরা আশা করব আপনাদের মুন্সিগঞ্জ ঢাকা এই রুটে চলাচল বেশ আরামদায়ক হবে।

মুন্সিগঞ্জ টু ঢাকা বাসের ভাড়া

আপনারা খেয়াল করেছেন যে আমরা বার বার উল্লেখ করেছি মুন্সিগঞ্জ থেকে ঢাকার দূরত্ব খুব একটা বেশি দূরে নয়। যেহেতু এদের দূরত্ব খুব একটা বেশি দূরে নয় তাই এই রুটে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই লোকাল বাস চলাচল করে। তাই এই রুটে কোন এসি বাস নেই যার কারণে আমরা এসি বাসের ভাড়া উল্লেখ করতে পারবোনা। কবে যে কয়েকটি লোকাল বাস চলাচল করে তাদের ভাড়া আমরা উল্লেখ করতে পারব।

  • মুন্সীগঞ্জঢাকা এই রুটে চলাচল করে বেশ কয়েকটি লোকাল বাস তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো নয়ন পরিবহন, দিঘীরপাড় পরিবহন এবং ঢাকা ট্রান্সপোর্ট। এই বাসগুলো প্রত্যেকটি লোকাল বাস এবং মুন্সীগঞ্জঢাকা এই রুটে প্রত্যেকটি বাস কোম্পানির বহু বাস রয়েছে। তারা তাদের বাসের ভাড়া নির্ধারণ করেছে 80 টাকা। তবে অনেক ক্ষেত্রে যাত্রীদের থেকে তারা 60 টাকা পর্যন্ত ভাড়া নেই। যেহেতু লোকাল বাস তাই একটু দরকষাকষির কারণে এই ভাড়ার এরকম অবস্থা।

অনলাইনে বাসের টিকিট 2022

আপনি বাংলাদেশের যে কোন জায়গা থেকে অনলাইনে বাসের টিকিট সংগ্রহ করতে পারেন। আপনি shohoz.com এর প্রবেশ করে অনলাইনে বাসের টিকিট কাটতে পারেন। আপনি কিভাবে shohoz.com এর মাধ্যমে অনলাইনে বাসের টিকিট কাটবেন তা সম্পর্কে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে বহু পোস্ট আপলোড করেছি। তাই আমরা এই পোস্টে আর বিস্তারিত আলোচনা করছি না আপনারা দয়া করে সেই তথ্যগুলো থেকে দেখে নিন কিভাবে অনলাইনে বাসের টিকিট কাটা যায়। যেকোনো ধরনের সমস্যার জন্য আমাদের কমেন্ট বক্সে রয়েছেই, অবশ্যই সেখানে কমেন্ট করুন এবং আপনার সমস্যার সমাধান করুন।

Digonto Ahmed

I am Digonto Ahmed. I read in Nasirabad University College. I like to travel. So I am sharing various information about Transport system in Bangladesh

Leave a Reply

Your email address will not be published.